সেঞ্চুরিই করতে চাননি দেবদূত!

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) শুরুর ঠিক আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন দেবদূত পাড়িক্কাল। মহামারী ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেই আইপিএল ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংসটি খেললেন তিনি।

কিন্তু এই সেঞ্চুর নাকি দেবদূত করতেই চাননি, যার কারণে বিরাট কোহলির কাছে ধমকও শুনেছিলেন।চতুর্দশ আইপিএলের ১৬তম ম্যাচে আগে ব্যাটিং করে ১৭৭ রান সংগ্রহ করে রাজস্থান রয়্যালস। শিবম দুবে ৩২ বলে ৪৬ রান ও রাহুল তেভাটিয়া ২৩ বলে ৪০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন।

তবে সেঞ্চুরি করে সবকিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছেন দেবদূত একাই। আইপিএলে নিজের ১৮তম ম্যাচেই পেয়েছেন সেঞ্চুরির দেখা। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর পেয়েছে ১০ উইকেটের বিশাল জয়। ৫২ বলে অপরাজিত ১০১ রান করেন দেবদূত। তার ইনিংসে ছিল ১১টি চার ও ৬টি ছক্কা।

উদ্বোধনী জুটিতে দেবদূতের সঙ্গী ছিলেন অধিনায়ক কোহলি। তিনি খেলেন ৩ ছক্কা ও ৬ চারে ৪৭ বলে ৭২ রান। দেবদূত যখন সেঞ্চুরির দুয়ারে ছিলেন, তখন দলও জয়ের দ্বারপ্রান্তে। তখন দেবদূত নিজের সেঞ্চুরির কথা না ভেবে কোহলিকে বলেছিলেন ম্যাচ শেষ করতে। কোহলি জানান, ‘দেবদূত যখন সেঞ্চুরির কাছাকাছি ছিল তখন আমাদের মধ্যে কথা হয়েছিল। ও আমাকে বলছিল, এবার তুমি ম্যাচটা শেষ করে দাও। আমার সেঞ্চুরির জন্য ভেবো না, অনেক সেঞ্চুরি করার সুযোগ পাব।

আমি তখনই ওকে ধমক দিয়ে বললাম, আগে এটা কর। সেঞ্চুরি করার পরে আমাকে এসে বলবে যে এরকম সেঞ্চুরি আরও করব।’ দেবদূতের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন কোহলি, ‘আসলে ও যেভাবে খেলেছে, তাতে এই সেঞ্চুরি ওর প্রাপ্য ছিল। দুর্দান্ত এক ইনিংস! একেবারে নিখুঁত! গত বছরও দেবদূত ভালো খেলেছিল, ওটাই ছিল ওর প্রথম বছর। আমি চাই ও নিজেকে আরও ভালোভাবে তৈরি করুক ও দলে বড় অবদান রাখুক। ও অনেক প্রতিভাবান। ভবিষ্যতের জন্য ওর ওপর ভরসা করাই যায়।’

চলতি আসরে নিজেদের প্রথম চার ম্যাচেই জয় পেল ব্যাঙ্গালোর। তবে এখনই সমর্থকদের অতি উৎসাহিত হয়ে না পড়ার সতর্কবার্তাও দিয়ে রেখেছেন অধিনায়ক কোহলি। তিনি বলেন, ‘সমর্থকদের বলব, এখনই অতিরিক্ত উৎসাহিত না হতে। আমরা সবাই পেশাদার খেলোয়াড়। সবাই জানি, যেকোনো সময়ই দল ছন্দ হারাতে পারে। তাই আমরা ধাপে ধাপে এগোতে চাই।’

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!