দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই বিপর্যয়ে বাংলাদেশ!

ক্যান্ডিতে প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। প্রথম ইনিংসে শূন্য রান করা সাইফ হাসান দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যর্থ হয়েছেন। মাত্র ১ রান করেই সাজঘরে ফিরলেন তিনি। প্রতিবেদন লেখার সময় বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ২৭ রান। তামিম ইকবাল ২৬ রানে ব্যাট করছে।

এদিকে রানের পাহাড় গড়ে ইনিংস ঘোষণা দিল শ্রীলংকা। ৮ উইকেটে ৬৪৮ রান সংগ্রহের পর মধ্যাহ্নভোজ বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা। এরপর আর ব্যাট হাতে মাঠে ফেরেনি তারা। বাংলাদেশকে দ্বিতীয় ইনিংসের ব্যাট তুলে লঙ্কানরা। প্রথম ইনিংসে ৫৪১ করে ইনিংস ঘোষণা করে টাইগাররা। ফলে দুই দলের প্রথম ইনিংস শেষে ১০৭ রানের লিড নিল শ্রীলংকা।

ইতোমধ্যে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে দিয়েছে বাংলাদেশ। স্কোরবোর্ডে ১১ রান জমাও করে ফেলেছে বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে নেমেছেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সাইফ হাসান। প্রথম ইনিংসের মতো ডাক মারেননি সাইফ। ৭ বল খেলে ১ রান করে রানের খাতা খুলেছেন। অন্যদিকে প্রথম বল ধেবেই মারমুখী তামিম।

ইতোমধ্যে একটি ছক্কা ও দুটি বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন। ১৩ বলে ১৬ রান করেছেন। এর আগে পঞ্চম দিনের খেলার প্রথম সেশন শেষে ১৭৯ ওভারে ৬৪৮ রানে থামে শ্রীলংকা। প্রথম সেশনে বাংলাদেশের শিকার ৫ উইকেট। মধ্যাহ্নভোজ বিরতির একটু আগেই অষ্টম উইকেটের পতন ঘটে শ্রীলংকার।

স্পিনার তাইজুলের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। তবে আউট হওয়ার আগেই যা করার করে দিয়ে যান। ৫৫ বলে ৪৩ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেললেন এই টেলএন্ডার। অন্যপ্রান্তে ৩১ বলে ২৩ রান করে অপরাজিত থাকেন সুরাঙ্গা লাকমাল। জমা করেছেন ইতোমধ্যে।

আজ দিনের শুরুতেই সাফল্য এনে দেন পেসার তাসকিন। যেখানে গতকাল সারাদিন কোনো উইকেটে নিতে পারেননি। আজ পর পর ওভারে দুটি উইকেট ফেলে দিলেন তিনি। প্রথমে ডাবল সেঞ্চুরির পথে যেতে থাকা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাকে ফেরান তিনি। পরের ওভারে ডাবল সেঞ্চুরিয়ান অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নেকে।

১৫৩.৪ ওভারে একটু দেরিতে ব্যাট চালালেন ধনঞ্জয়া। তার আগেই বল সরাসরি স্ট্যাম্প ভেঙে দেয় তার। সমাপ্তি ঘটে ধনঞ্জয়ার ২৮৮ বলে ১৬৬ রানের ইনিংসের। সমাপ্তি ঘরে ৩৪৫ রানের পার্টনারশিপের।

নিজের পরের ওভারের চতুর্থ বলে সাজঘরে ফেরান আড়াইশর পথে হাঁটা লঙ্কান অধিনায়ককে। তাসকিনের বলে শান্তর হাতে ক্যাচ দিয়ে থামে করুণারত্নের ব্যাট। এরপর পাথুম নিশাঙ্কাকে ফেরান পেসার এবাদত। ১৫৯.৪ ওভারে এবাদতের ডেলিভারিটি অফস্ট্যাম্পের বাইরে দিয়ে যাচ্ছিল। যা ভালোভাবে খেলতে পারেননি নিশাঙ্কা। তার ব্যাটের কানায় ছুঁয়ে এজ হয়ে সরাসরি চলে যায় উইকেটরক্ষক লিটন দাসের গ্লাভসে।

২৩ বলে ১২ রান করে সাজঘরে ফেরেন এই মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান। এরপর রানআউটের শিকার হন নিরোশান ডিকভেলা। ১৬৬তম ওভারের শেষ বলে হাসারাঙ্গা ডি সিলভার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝি হয় ডিকভেলার। রানের জন্য ছুটে ক্রিজের মাঝপথে চলে আসেন। ততক্ষণে বোলার মিরাজের হাতে বল। পপিং ক্রিজের ফেরার আর পথ ছিল না ডিকভেলার। মিরাজের থ্রোতে উইকেট ভেঙে দেন উইকেটরক্ষক লিটন দাস। ৩৩ বলে ৩১ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলেছেন ডিকভেলা।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!