অসহায় ভা'রতের পাশে দাঁড়াচ্ছে যেই সব দেশ

করো'নায় দিশেহারা ভা'রত। অক্সিজেন আর চিকিৎসার অভাবে মা'রা যাচ্ছে অসংখ্য মানুষ। করো'নায় বিপর্যস্ত ভা'রতের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে যু'ক্তরাজ্য, জার্মানি ও যু'ক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ।

এরই মধ্যে অক্সিজেনসহ বিভিন্ন মেডিকেলসামগ্রী পাঠিয়েছে ব্রিটিশ সরকার।সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘হ্যাশট্যাগ ইন্ডিয়া নিড অক্সিজেন’লিখলেই উঠে আসছে ভা'রতের করো'না মহামা'রির চরম ভ'য়বহতা। মহামা'রির কাছে কতটা অসহায় মানুষ। স্বজন হা'রানো আর্তনাদে ভা'রী দিল্লি, মহারাষ্ট্র থেকে শুরু করে ভা'রতের বিভিন্ন রাজ্যের আকাশ। করো'না মহামা'রিতে ভেঙে পড়েছে দেশটির স্বাস্থ্যব্যবস্থা।

অক্সিজন আর চিকিৎসার অভাবে প্রতিনিয়ত প্রা'ণ হারাচ্ছেন অসংখ্য করো'না রোগী। হাসপাতা'লে জায়গা না পেয়ে বাইরেই অ'পেক্ষার প্রহর গুনছেন অনেকে। কেউবা আবার বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন ব্যর্থ হয়ে। শ্মশানগুলোতেও জায়গা নেই দাহ করার। তাই অনেক হাসপাতা'লের বেইজমেন্টেই চলছে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া।

ভা'রতের চরম বিপর্যয়ে পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে পশ্চিমাদেশগুলো। করনো সংকট মোকাবিলায় দেশটিকে সব ধরনের সহায়তার কথা জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জার্মানি ও ফ্রান্স। এ ছাড়া জরুরি ভিত্তিতে ৬ শতাধিক মেডিকেল ইকুইপমেন্ট ৪৯৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার ভেন্টিলেটরসহ বিভিন্ন সুরক্ষাসামগ্রী পাঠিয়েছে যু'ক্তরাজ্য।

এদিকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন তৈরির জন্য ভা'রতের ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট'কে কাঁচামাল সরবাহের সিদ্ধান্ত নিয়েছে যু'ক্তরাষ্ট্র। একই সঙ্গে ভা'রতে একটি বিশেষজ্ঞ দল পাঠাবে বাইডেন প্রশাসন।করো'নাভাই'রাসে আ'ক্রান্ত ও প্রা'ণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, ভা'রতে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও তিন লাখ ৫৪ হাজার ৫৩১ জনের করো'না শনাক্ত হয়েছে এবং মা'রা গেছে দুই হাজার ৮০৬ জন।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) সকাল পর্যন্ত দেশটিতে মোট করো'নাভাই'রাসে আ'ক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি ৭৩ লাখ ৬ হাজার ৩০০ জন এবং মা'রা গেছেন এক লাখ ৯৫ হাজার ১১৬ জন। আ'ক্রান্তের দিক থেকে দেশটি বিশ্বে দ্বিতীয় ও মৃ'ত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে।

দেশটিতে করো'নায় আ'ক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছে এক কোটি ৪২ লাখ ৯৬ হাজার ৬৪০ জন এবং বর্তমানে আ'ক্রান্ত অবস্থায় রয়েছে ২৮ লাখ ১৪ হাজার ৫৪৪ জন।ভা'রতে করো'নায় আ'ক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হওয়ার হার ৯৯ শতাংশ এবং মা'রা যাওয়ার হার এক শতাংশ। সে দেশে বর্তমানে করো'নায় আ'ক্রান্তদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রয়েছে আট হাজার ৯৪৪ জন এবং বাকিদের অবস্থা স্থিতিশীল।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!