যে প্রশ্নের উত্তর করতে করতে টায়ার্ড নায়িকা ববি

বেশ লম্বা সময় ধরে অ্যাকশন-কাটের ঝলমলে দুনিয়ায় সরব নেই ঢাকাই সিনেমার চিত্রনায়িকা ইয়ামিন হক ববি। তাই তো নতুন খবরেও নেই নায়িকা। মাঝেমধ্যে দেখা মেলে শুধুই নেটমাধ্যমে।

ববির এই নীরব থাকা কিছুটা ব্যক্তিগত, বাকিটা করোনা। সম্প্রতি এক আলাপচারিতায় নায়িকা বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে, ‘আব্বা মারা যাওয়ার পর আম্মা অস্ট্রেলিয়া চলে গেল। এ ছাড়া আমার দুটো বড় ছবির প্ল্যান করা এমনভাবে… ইনভেস্টমেন্ট ও প্রি-প্রোডাকশনও রেডি, হলে মুক্তি দিতে হবে এমনভাবে প্ল্যান করা।

এখন আসলে সেই মনোযোগ সরিয়ে কম বা ছোট বাজেটের ওয়েব সিরিজ বা ফিল্মে মনোযোগ দিতে হবে, সেভাবেই আসলে তৈরি হচ্ছিলাম। তার মধ্যে আবার করোনা এসে গেল আর আমি তো আসলে ইঁদুরদৌড়… সবাই দৌড়াচ্ছে, আমিও দৌড়াব, আমি তো এভাবে কোনোদিন কাজ করিনি।’

এই আলাপ ববি দীর্ঘ করেছেন এভাবে, ‘সবাই বলত, আপু আপনার কাজ ভালো লাগে, আরও কাজ চাই। প্রায় নয় বছরের বেশি, ১০ বছর হয়ে গেল সিনেমাতে কাজ করছি… এখনও সব মাধ্যমেই আমাকে দর্শক বলে, আপনাকে দেখতে চাই।আমি ভাগ্যবান যে আমাকে দর্শক এখনও দেখতে চায়। তারা এখনও বোর হয়ে যায়নি। করোনার জন্য বিরতিটা একটু লম্বা হয়ে গেছে, এটা সত্য। মানুষের একটাই প্রশ্নের উত্তর করতে করতে আমি টায়ার্ড হয়ে গেছি, আমাকে দেখতে চায়, আমি কেন এখনও আসছি না।’

নায়িকা মানে পর্দায় থাকবে, ভক্তদের স্বপ্নে থাকবে। এই লম্বা বিরতিতে দর্শক ভুলে যাবে বলে মনে হয়? এই প্রশ্নের উত্তরে ববি জানিয়েছেন, ‘বিষয়টা আসলে এমন না। এক বছর তো একটা লম্বা সময়… আর আমি এটা নিয়ে এতটা চিন্তিত না যে এক বছরে মানুষ আমাকে আবার ভুলে যাবে না তো। আমি মনে হয় এমন কিছু কাজ… আমি জানি না বেস্ট কাজ তো অবশ্যই বাকি আছে। অনেক লম্বা পথ যাওয়া বাকি আছে। এক বছরে আমাকে দর্শক ভুলে যাবে, এমনটা মনে হয় না।’

তাহলে এখন কীভাবে সময় কাটছে? ববির উত্তর, ‘এই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই দর্শক আমার কাজ দেখবে। কতগুলো কাজের প্রস্তুতি নিয়েও আসলে ঝুলে আছে। দর্শককে বলব, এই পরিস্থিতিতে আমিও ঘরে আছি, রোজা রাখছি। ঈদের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই কাজে নেমে পড়ব, একটুও দেরি করব না। সবার কাছে দোয়া চাই।’২০১০ সালে ইফতেখার চৌধুরীর পরিচালনায় ‘খোঁজ : দ্য সার্চ’ সিনেমার মাধ্যমে ঢালিউডে হাতেখড়ি হয় ইয়ামিন হক ববির।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!