ভারতে নয়, আইপিএলের বাঁকি অংশ হবে দেশের বাইরে !

আগের আসর আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হলেও শঙ্কার মাঝেও নিরাপদ দাবী করে গত ৯ এপ্রিল মাঠে গড়ায় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ১৪ তম আসরের খেলা, টুর্নামেন্ট মাঠে গড়ানোর পর থেকেই অবনতি হতে থাকে ভারতের করোনা পরিস্থিতি।

এরপর টুর্নামেন্ট চালিয়ে যাওয়া নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়লেও নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় ছিলো ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তবে পরিস্থিতি পাল্টে যায় ৩ মে, কলকাতা নাইট রাইডার্সের দুই ক্রিকেটার বরুণ চক্রবর্তী ও সান্দিপ ওয়ারিয়র করোনা আক্রান্ত হলে সবচেয়ে বড় ধাক্কা খায় আইপিএল। স্থগিত হয়ে যায় কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের ম্যাচটি। সেই ঘটনার পরেও আইপিএল চালিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী ছিল বিসিসিআই, কিন্তু পরের ২৪ ঘন্টায় সব বদলে যায়।

চেন্নাই সুপার কিংসের ৩ কোচিং স্টাফের সদস্য করোনা আক্রান্ত হলে পরের দিন ম্যাচ খেলতে অস্বীকৃতি জানায় মহেন্দ্র সিং ধোনি, সুরেশ রায়নারা। দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামের আরও ৩ স্টাফ করোনা আক্রান্ত হয়, তবে বিসিসিআই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয় সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ঋদ্ধিমান সাহা ও দিল্লি ক্যাপিটালসের অমিত মিশ্র করোনা আক্রান্ত হলে। ৪ মে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত ঘোষণা করা হয়,

ভারতের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি ও সবার নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় আপাতত টুর্নামেন্ট চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয় উপলব্ধি করলেও টুর্নামেন্টের বাঁকি অংশ আয়োজনে আগ্রহী ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। সেপ্টেম্বরে আবারও মাঠে গড়াতে পারে আইপিএলের বাঁকি অংশ, তবে কোথায় সেই অংশটা অনুষ্ঠিত হবে সেটা নিয়ে চলছে বিস্তর আলোচনা। আইপিএলের বাঁকি অংশ আয়োজনে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বিবেচনায় আছে ৩ টি দেশ।

সেগুলো হলো – আরব আমিরাত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। আইপিএল স্থগিতের পর আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও সরে যাওয়াটা সময়ের ব্যাপার, সেই কারণেই বিশ্বকাপের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আইপিএল আয়োজন করা হতে পারে আরব আমিরাতে। ২২ অক্টোবর থেকে বিশ্বকাপ শুরু হতে পারে, সেপ্টেম্বরে আইপিএল আয়োজনের পরিকল্পনা করছে বিসিসিআই। দ্বিতীয় বিকল্প হিসেবে বিসিসিআইয়ের পরিকল্পনায় আছে ইংল্যান্ড, কারণ ভারতীয় ক্রিকেটাররা টেস্ট সিরিজ খেলতে ওই সময় ইংল্যান্ডেই থাকবে।

তাদের আলাদা করে কোয়ারেন্টাইনের ঝামেলায় পড়তে হবে না, বাঁকিদেরও ইংল্যান্ডে যেতে আপত্তি থাকার কথা নয় বলেই ধরে নিচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। শেষ বিকল্প হলো অস্ট্রেলিয়া, তবে দেশটির সরকারের মনোভাব না পাল্টালে সেটা সম্ভব নয় বলেই ভাবছে বিসিসিআই।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!