হেরেও প্রতিশ্রুতি ভোলেননি সায়ন্তিকা !

রাজনীতিতে নেমেই টিকিট পেয়েছিলেন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়া বিধানসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হয়েছিলেন টলিউড তারকা। প্রার্থী হিসেবে নাম ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই প্রচারে ফাঁকি দেননি তিনি।

অভিনেত্রীকে দেখে হাততালিরও কমতি হয়নি। কিন্তু বাঁকুড়ার মতো শক্ত পদ্মঘাঁটির পিচে ২ মে শেষ হাসি হাসতে পারেননি নায়িকা। সামান্য মার্জিনেই পরাজিত হয়েছেন সায়ন্তিকা।

তবে হারলেও বাঁকুড়ার মানুষের জন্য এখনও কাজ করতে প্রস্তুত তিনি। সামাজিক মাধ্যমে পোস্টের মাধ্যমে সেরকমই জানিয়েছেন অভিনেত্রী। প্রচারের ময়দানে নেমে গোড়া থেকেই বলেছিলেন যে বাঁকুড়ার মানুষের সঙ্গে তার আত্মিক যোগ তৈরি হয়েছে। ভোটবাক্সে পরাস্ত হয়েও সেই সম্পর্ক ক্ষুণ্ন হয়নি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হেরে গিয়েও দমে যেতে রাজি নন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কয়েকটা ভোটের ব্যবধানে হারলেও ভুলে যাননি বাঁকুড়াবাসীকে দেওয়া প্রতিশ্রুতিগুলো। তাই এমন অতিমারী সঙ্কটের দিনেই সায়ন্তিকা এগিয়ে এলেন সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে। বাঁকুড়ার কোভিড আক্রান্তদের জন্য অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা চালু করলেন। পাশাপাশি কোনো রকম দরকার পড়লে আপৎকালীন সাহায্যের জন্য যোগাযোগ নম্বরও দিয়েছেন তৃণমূল শিবিরের প্রতিনিধি।

ইনস্টাগ্রাম পোস্টে তৃণমূলের তারকা প্রার্থী লিখেছেন, ‘বাংলা বাংলার রায় দিয়েছে, বাংলার মেয়ের কাছেই বাংলা থাকছে। তৃতীয়বারের জন্য আমাদের অভিভাবক হিসেবে মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে পেয়ে আমরা গর্বিত।’ এরপর বাঁকুড়া প্রসঙ্গে লিখেন, ‘এবার আসি বাঁকুড়ার কথায়, আমি প্রথম দিনই বলেছিলাম বাঁকুড়া আমার নিজের পরিবার।

তাই ব্যালটের রেজাল্ট কিংবা কয়েকটা ভোটের ব্যবধানে আমার প্রতিশ্রুতিগুলো বদলয়ানি। প্রথম দিনের মতোই আজকের দিনেও আমি ঠিক একই কথা বলব, সুখে না থাকতে পারি দুঃখে অবশ্যই থাকব।’ বাঁকুড়ায় সায়ন্তিকার বিপরীতে বিজেপির হয়ে লড়েছেন বিজেপির নীলাদ্রী শঙ্কর ডানা। তিনি ৯৪ হাজার ৪৭০ ভোটে পেয়ে জিতেছেন। সায়ন্তিকা পেয়েছেন ৯৩ হাজার ৯৩ ভোট।

গণনার দিন সকাল থেকেই চলছিল হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। মাত্র এক হাজার ৩৭৭ ভোটে পরাজিত হয়েছেন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী। ২০১৯-এর লোকসভায় পিছিয়ে থাকা আসনকে সায়ন্তিকা খানিক এগিয়ে এনেছেন একুশের বিধানসভা নির্বাচনে। সদ্য রাজনীতিতে হাতেখড়ি হওয়া অভিনেত্রীর কাছে এই গতি নিঃসন্দেহে সাফল্যের চেয়ে কম কিছু নয়। অতিমারিকালে তাই টলিউডের চাকচিক্য থেকে বেরিয়ে বাঁকুড়ার মানুষের পাশে ‘দিদির প্রিয় প্রাত্রী’ সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর্জি জানালেন, ‘মাস্ক পড়ুন এবং ভ্যাকসিন অবশ্যই নিন।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!