বিশ্ব বিবেককে নাড়া দেওয়া শি'শুর সেই দৃশ্য নিয়ে যা বললেন এরদোগান

তা'লেবান কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর সেখানে তৈরি হয়েছে অস্থিরতা। ভ'য়-উৎকণ্ঠায় অনেকেই ভিটেমাটি ছেড়ে দেশান্তরী হওয়ার চেষ্টা করছেন। ভিড় করছেন বিমানবন্দরে। সেখানে ঘটছে হা'মলার ঘটনা।

তা'লেবানের নাঙা তলোয়ারের ভ'য়ে অনেক মা-বাবা তার দুধের সন্তানকে মা'র্কিন সে'নাদের হাতে তুলে দিচ্ছেন। এমন ছবি গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়েছে। যেটি বিশ্ববিবেকে নাড়া দিয়েছে। এই দৃশ্য চোখ এড়ায়নি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের।

১৯ আগস্ট কাবুল থেকে পালাতে ম'রিয়া এক আ'ফগা'ন বাবা হামিদ কারজাই বিমানবন্দরের দেয়ালে তার দুগ্ধপোষ্য শি'শুকে এক মা'র্কিন সে'নার হাতে হাতে তুলে দেন। ছবিটি দাগ কে'টেছে বিশ্ববাসীর হৃদয়ে।

এ বিষয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছেন, প্রযু'ক্তি যু'দ্ধ না, শান্তি আনে। নাঙা তলোবারির মুখে আ'ফগা'ন মায়েরা যদি তাদের দুধের সন্তানদের বিদেশি সে'নাদের হাতে তুলে দিতে বাধ্য হন সেই দৃশ্য দেখে আম'রা আম'রা চুপ থাকি কী' করে।

আ'ফগা'নিস্তানে থেকে সে'না প্রত্যাহারের আগমুহূর্তে সেখানে তা'লেবানের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এসব কথা বলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, এমন নৃ'শংসায় তুরস্ক চোখ বুজে থাকবে না।

কাবুল বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ এতোদিন যু'ক্তরাষ্ট্রের সে'নাদের হাতে ছিল। বিশৃংখলা এড়িয়ে তারা সেখান থেকে আ'ফগা'ন ছাড়তে চাওয়া লোকজনেকে সরিয়ে আনতে সচেষ্ট। এরমধ্যেই হুড়োহুড়িয়ে অন্তত ৮ জনের মৃ'ত্যু হয়েছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, আ'ফগা'নিস্তানে আরও যদি র'ক্তপাত হয়, তাহলে বাকি বিশ্বের কাছে আম'রা কি জবাব দেব?এদিকে আ'ফগা'নিস্তানে কূটনৈতিক মিশন অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ঘোষণা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। এরইমধ্যে কাবুলে নিজেদের ভবনে আবার ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে তুরস্কের দূতাবাস। দু’সপ্তাহ আগে তা'লেবানরা আ'ফগা'নিস্তান দখল করে নেয়। তারা সেখানে সরকার গঠনে তৎপর।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!