যে বিশেষ শর্তে জাতীয় দলে ফিরবেন মাশরাফি!

দেশের ক্রিকে'টে যত গুজব রটে তার মধ্যে কিছু সত্য আর কিছু মিথ্যা। তবে যা ঘটে তার চেয়ে রটেই বেশি। সম্প্রতি দু’টি গুজন শোনা যাচ্ছিল। এর মধ্যে একটি হলো মাশরাফি বিসিবিতে আসতে পারেন।

তিনি নড়াইল বা অন্য কোনো ক্যাটাগরিতে কাউন্সিলর হয়ে বোর্ড পরিচালক পদে নির্বাচন করতে পারেন। আর অন্যটি হলো ভা'রতের ধোনির মতো মাশরাফিও টিম বাংলাদেশের মেন্টর হতে পারেন।চলতি বিশ্বকাপে ধোনিকে ভা'রতের মেন্টর করার পরই দাবি উঠেছিল মাশরাফিকে মেন্টর হিসেবে জাতীয় দলে ফেরানোর।

তারমধ্যে তামিম ইকবালতো এক ট'কশোতে স্পষ্টই চেয়ে বসেন মেন্টর হিসেবে মাশরাফিকে। এরপরই মূলত গুঞ্জনটা আরও শক্ত হয়।সম্প্রতি নট আউট নোমান নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মাশরাফি বলেছেন, তিনি জাতীয় দলে মেন্টর হিসেবে ফিরতে পারেন। তবে এজন্য রয়েছে অনেক শর্ত। পরিবেশ-পরিস্থিতিঅনূকুলে থাকলেই কবল তিনি ফিরবেন।

মাশরাফি বলেন, আমা'র এখন দলের সঙ্গে যু'ক্ত হওয়ার কোনো ইচ্ছে নেই। একদম সত্যি বলতে, কোনোভাবেই নাই। কারণ আমি নাই বা বললাম। ব্যক্তিগত পর্যায়ে যদি কেউ হেল্প চায় সেটা করতে পারি। যেমন তাসকিন চেয়েছিল। আমি পাশে দাঁড়িয়েছিলাম। আমা'র অনেক খেলোয়াড়ের সঙ্গে কথাহয়, তারা যদি কেউ চায় তবে আমি তাদের পাশে থাকব।আরেক প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, ২০২৩ আসতে এখনো বাকি দুই বছর।

এখনকার পরিবেশ-প্রেক্ষাপটের সঙ্গে সে সময়ে অনেক ফারাক থাকতে পারে। প্রথমত সেটা ২০২৩। ২০২১, মানে এখন নয়। আমি জানি না তখন আমি কোন সিচ্যুয়েশনে আসবো। আমি আগেও বলেছি মেন্টর হিসেবে গিয়ে খুব বেশি কিছু করার আছে বলে মনে হয় না। আপনি তো আর মাঠের খেলা খেলে দেবেন না। আমি ঠিক জানি না কি করতে হবে? তবে আমা'র মনে হয়, আমাকে এমন কিছু করতে হবে যেটা দলকে বদলে দেবে।

মাশরাফি বলেন, ‘আমি কার সঙ্গে কাজ করবো, কী'ভাবে করবো, আমা'র কাজের ধরন কি হবে অথবা আমা'র কাজে অযাচিত হস্তক্ষেপ হবে কিংবা কেউ এসে বাঁ হাত দেবে-তা চলবেনা। আমা'র জবাবদিহিতা এবং দায়বদ্ধতার একটি নির্দিষ্ট জায়গা থাকবে। আমি কাজ করলে সম্পূর্ণ ক্ষমতা নিয়ে করবো। প্রতিনিয়ত আমা'র কাজে ডিষ্টার্ব হবে, ওই ধরনের কাজে আমি যাবো না।’

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!