বাচ্চা হাতি ট্রেনে কা’টা পড়ায়, ট্রেনের সামনে সুই’সা’ইড করল মা হাতি যা এক বিরল ঘটনা, তুমুল ভাই'রাল (দেখু'ন ভিডিও)

ধীরে ধীরে মানুষের চিন্তা চেতনার বিকাশ হবার সাথে সাথে তারা প্রকৃতির নানা র'হস্য উদঘাটনে ব্যস্ত হয় পরে। শুরু হয় বিজ্ঞানের যাত্রা।

বিজ্ঞানের অগ্রগতির সাথে সাথে যোগাযোগ ব্যবস্হারও অভুতপূর্ব উন্নয়ন ঘটতে থাকে।এই উন্নয়নের অন্যতম অংশীদার হল রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা।

বাষ্পীয় রেল ইঞ্জিন আবিষ্কারের পর যোগাযোগ ব্যবস্হা হয়ে উঠেছে আরো সহ'জ,আরো সাশ্রয়ী এবং আরাম'দায়ক। রেল যোগাযোগ মানুষের ভ্রমণ যাত্রাকে আরাম'দায়ক করলেও এর বেশ কিছু নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে।

তারমধ্যে অন্যতম হলো দুর্ঘ'টনা। আম'রা প্রায় প্রতিদিনই সংবাদমাধ্যমে টেনে কা'টা পরে মানুষের মৃ'ত্যুর খবর শুনি।ট্রেনে কা'টা পরে যে শুধু মানুষ মা'রা যাচ্ছে তা নয় অনেক প্রা'ণীও মা'রা যাচ্ছে, আ'হত হচ্ছে।

কেননা রেল যোগাযোগ ব্যবস্হায় রেল লাইনগুলোকে সাধারণত গ্রামীণ অঞ্চলের মধ্য দিয়ে নেওয়া হয় যার মধ্যে থাকে বন জঙ্গল।ফলে এসব বনজঙ্গলের নানা প্রা'ণী ট্রেনে কা'টা পরে মা'রা যাচ্ছে।

যা আম'রা অনেক সময়ই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাই'রাল হওয়া ভিডিও তে দেখতে পাচ্ছি। এরকমই একটা ভিডিও সম্প্রতি ভাই'রাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইউটিউবে।

যা সাধারণ মানুষকে খুব ম'র্মাহত করছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইউটিউবের ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে ভা'রতের কোন এক জঙ্গলে একটা হাতি ট্রেনের সামনে পরে মা'রাত্মক ভাবে আ'হত হয়।

ট্রেনটিকে সাথে সাথে হয়ত থামানো হয়েছিল।হাতিটি ট্রেনের সামনে আ'হত অবস্থায় পরে ছিলো এবং ছেঁচড়িয়ে সরার চেষ্টা করছিল।হাতির পা এবং শরীর ছিলো র'ক্তাক্ত।

সে খুব একটা নড়াচড়া করতে পারছিল না।অনেক চেষ্টার পরে হাতিটি উঠে দাঁড়ায় এবং বনের মধ্যে যায়। এই ভিডিওটিতে একটা দৃষ্টিকটু,অমানবিক বিষয় ছিলো প্রায় শ’খানেক মানুষ হাতিটিকে সাহায্য করার পরিবর্তে তাদের হাতের ফোন দিয়ে আ'হত হাতিটির ভিডিও করছিল।

বর্তমান সময়ে এটা একটা ব্যধিতে পরিনত হয়েছে।কেউ বিপদে পড়লে মানুষ সাহায্যের পরিবর্তে ঘটনার ভিডিও করা নিয়ে ব্যস্ত থাকে।

ইউটিউবে আপলোড হওয়ার সাথে সাথে ভিডিওটি ভাই'রাল হয়ে যায়।কমেন্ট সেকশনে পশুপ্রে'মীরা মানুষের এই ভিডিও করার বিষয়ের সমালোচনা করেতেছে এবং তাদের প্রা'ণীদের প্রতি সহানুভূতিশীল হবার আহ্বান জানাচ্ছে।

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!