সুন্দরীদের বাছাই করে ব্যবসা করাতে চান ছাত্রলীগ নেত্রী

ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ফের উত্তপ্ত হয়ে ওঠেছে ইডেন মহিলা কলেজ। সিটবাণিজ্যসহ বিভিন্ন বি’ষয়ে প্র’তিবাদ করায় এবার জান্নাতুল ফেরদৌস নামে এক নেত্রীকে মা’রধরের অ’ভিযোগ উঠেছে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার বি’রুদ্ধে।

এ ঘটনার মধ্যেই রিভা ও রাজিয়ার ‍বি’রুদ্ধে এবার অ’ভিযোগ তুলেছেন ওই কলেজের শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সামিয়া আক্তার বৈশাখী।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, জান্নাতুলের ও’পর স’হিংস আচরণ নতুন নয়। আগেও এমন অনেক ঘটনা ঘটেছে। বৈধ রুমের মেয়েরা উপস্থিতি খাতায় স্বাক্ষর করার সময় সভাপতির (তামান্না জেসমিন রিভা) অনুসারীরা তাদের ছবি তুলে রাখেন।

পরে সেখান থেকে সুন্দরীদের বাছাই করেন। পরে বাছাইকৃত মেয়েদেরকে রুমে নিয়ে বিভিন্ন ধরনের হু’মকি দিয়ে খা’রাপ উদ্দেশ্যে তাদেরকে বিভিন্ন ধরনের কু’প্রস্তাব দেওয়া হয়। কারণ, তারা ওই মেয়েদেরকে দিয়ে বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা করাতে চান।

কিছুদিন আগে একজন মেয়ে কা’ন্না করতে করতে এ বি’ষয়ে বিবৃতি দিয়েছেন উল্লেখ করে বৈশাখী বলেন, কলেজের কর্মকর্তারা সবাই বি’ষয়টি সম্পর্কে জানেন। কিন্তু সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে তারা জ’ব্দ।

তিনি আরও বলেন, দলের সুনাম যেন ক্ষুণ্ন না হয়, সেজন্য এতদিন কিছু বলিনি। কিন্তু ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দিন দিন এমন বৈরী আচরণ মেনে নেওয়া যায় না। এভাবে চলতে থাকলে ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ন’ষ্ট হবে যাবে।

সামিয়া আক্তার বৈশাখী বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাহায্য না করে আমরা যদি সিটবাণিজ্য, মেয়ে বাণিজ্যসহ নানা অ’পকর্ম করি, তাহলে তো ইডেন কলেজেরও বদনাম হবে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বেশ কিছু বি’তর্কি’ত কর্মকাণ্ডে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভাকে নিয়ে তুমুল বিতর্ক চলছে। বিশেষ করে ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে না যাওয়ায় শিক্ষার্থীদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও হু’মকি দেওয়ার একটি অডিও গণমাধ্যমকে ফাঁ’স হয়। যদিও পরে এ নিয়ে ক্ষমা চান তিনি।

শুধু তাই নয়, এ ঘটনায় চার দিন পর রিভার বি’রুদ্ধে দুই ছাত্রীকে বি’বস্ত্র করে ভিডিও ভাইরাল করার হু’মকি দেওয়ার অ’ভিযোগ ওঠেছে।

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!