হানিমুনে গিয়ে স্বামীকে মারধর অবশেষে আটক সেই প্রেমিক-প্রেমিকা

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে হানিমুন করতে যাওয়া এক পর্যটককে মারধরের শেষে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে পালানোর অভিযোগ উঠেছে এক গৃহবধূর বিরুদ্ধে। আলোচিত এ ঘটনার ৭ (সাত) দিন পরে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে পলাতক সেই গৃহবধূকে গ্রেফতার করেছে তালতলী থানা পুলিশ। জানা গেছে, গত মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) স্ত্রীকে

নিয়ে হানিমুনে যায় প্রবাসী স্বামী মনিরুল ইসলাম (৩৫)। রাত ১১ টার দিকে স্ত্রী নয়নি (ছদ্মনাম) পরকিয়া প্রেমিক ও লোকজন নিয়ে প্রবাসী স্বামী মনিরুল ইসলামকে বেধরক মারধর করে বরগুনার তালতলী উপজেলার ছোটবগী ইউনিয়নের মৌপাড়া এলাকার আলাল হাওলাদারের ছেলে নোমানের (২৪) সাথে পালিয়ে গিয়ে তালতলীর নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের আগাপাড়া শাহজাহান প্যাদার ছেলে হাসান প্যাদার বাড়িতে (ছেলের দুলা ভাইয়ের) আত্মগোপন করে।

সংবাদ পেয়ে তালতলী থানা পুলিশ তাদেরকে হাসান প্যাদার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার কৃত ওই গুহবধু বরগুনা সদর উপজেলার ৮নং ওয়ার্ডের হেউলিবুনিয়া গ্রামের মো. হারুন অর রশিদের মেয়ে নয়নি (ছদ্মনাম)।তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে গিয়ে স্বামী কে মারধর শেষে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে পলাতক সেই আলোচিত পরকিয়া প্রেমিক-প্রেমিকা তালতলীতে আত্মগোপন করে।

সংবাদ পেয়ে তালতলী থানা পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করে। এঘটনায় মহিপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। মহিপুর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তাদেরকে মহিপুর থানায় পাঠানো হবে

Related Articles

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!